পড়ুন, লিখুন, প্রকাশ করুন, ছড়িয়ে দিন 

সবথেকে বড় কবিতা, গল্প, ছন্দ, গান, নাটিকা প্রকাশের সাইট


কবিতা

  • অমানুষ

    অমানুষ….. ভাবিলাম চোখের ঘুম কেড়ে চাহিয়া দেখি সংবাদে কত মানুষের আন্দোলনে, কত মানুষের আহত হত্যার খবরে চোখ যেন থমকে গেছে খাবলে ধরেছে হায়নার দলেরা সব খাবে লুটপাটে কে যাবে বাঁধা দিতে, বাঁধার মতো নেই যে আগে পিছে যদি করি মত প্রকাশের আন্দোলন হতেই হবে রক্তাক্ত মরন মানুষ হয়েও মানুষের কী পাল্টে গেল চিন্তা চেতনা কে…

    পড়তে থাকুন


  • আত্মপরিচয়!

    আত্মপরিচয়! আমি কে……..? আমি কে?…….. আমি সেই জন, যে কোটার বিরুদ্ধে করে আন্দোলন। আমি সেই জন, যে করে অন্যায় বিমোচন। আমি সেই জন, যে দুর্নীতির বিরুদ্ধে করে রক্ত ক্ষরণ। আমি সেই জন, যে রাজাকার উপাধিতে করে জীবন-যাপন। আমি সেই জন, যে পুলিশের গুলিতে করে মৃত্যু বরণ। আমি সেই জন, যাকে সবাই ২০২৪ সালের কোটা বিরোধী…

    পড়তে থাকুন


  • -আগামীকাল।

    আগামীকাল…. একটি আগামীকালের আশায়- আমি হত্যা করেছি গত ২ বছরের পাওয়া, প্রত্যেকটা গতকালকে। অথচ আমার জীবনে সে আগামীকাল আর আসে নি। সে আগামীকাল  নিতান্ত কল্পনা না হয় অলুক স্বপ্ন। একটি আগামীকালের আশায় – আমি হত্যা করেছি অতীতে দেখা, প্রত্যেকটা স্বপ্নকে। অথচ আজ এসে জানলাম, সেই আগামীকালই আমার দুঃস্বপ্ন। একটি আগামীকালের আশায় – হাজার দিনের চিরচেনা…

    পড়তে থাকুন


  • _…স্মৃতি…_

    স্মৃতি….. তুমি মানুষ না হয়ে পাখি হলে ভালো হতো রং হতো তোমার নীল, অপরাজিতা নয় উপাধি হতো তোমার কোকিল। উড়ে যাওয়া পাখির রেখে যাওয়া পালকের মতো দিয়েছো তুমি স্মৃতি, তোমারেই ভেবে ভেবে করি রোজ কবিতা আবৃতি। কি উপমা দেবো তোমায় আগুন নাকি পরি? ধরতে গেলে আহত হই আর ভুলতে গেলে মরি। ……………-আজমির আহমেদ-

    পড়তে থাকুন


  • নামহীন কেউ আমি

    তুমি তো আমার প্রেমিকা নও? -আমি জানি না।আমি তোমার কে?শুধু জানি গুরুত্বহীন,নামহীন,অস্পষ্ট,হতভাগা, কেউ আমি। যার কোনো পরিচিতি নেই।হয়তো তার অপ্রকাশ্য ভংগিমায় থাকা উচিৎও নয়।

    পড়তে থাকুন


  • ভালোবাসি বলেই

    ভালোবাসি বলেই কখনো তোমায় বলতে পারিনি ভালোবাসি ফুলের মাঝে, চাঁদের ভেতরে তোমার মুখটা দেখে আসি। ভালোবাসি বলেই রাতের আকাশে মহাকাব্য লিখে স্বর্গীয় বার্তা বিলিয়ে যাই আমি দিকে দিকে। ভালোবাসি বলেই নতুন একটা পৃথিবী জন্ম দিতে প্রতিনিয়ত যুদ্ধ করি অনাসৃষ্টির বিপরীতে। ভালোবাসি বলেই বৃষ্টির শব্দ এতো রোমাঞ্চকর বেঁচে থাকার বাসনা জাগে হাজার বছর।

    পড়তে থাকুন


  • ভালো যদি বাসো

    চোখের ভাষা পড়তে গেলাম চোখ নামিয়ে নিলে কেন তবে ব্যাকুল হয়ে কাছে এসেছিলে? মন বাড়িয়ে মন জাগালে আমার কিসের দোষ আগ বাড়িয়ে ভালোবাসলাম এতে দেখাও রোষ। ভালো যদি বাসো ছলচাতুরী ফেলে পথের বাধা ঠেলে সোজা চলে আসো।

    পড়তে থাকুন


  • ইচ্ছে

    লেখা হয়না আর কবিতা ক্লান্ত আজ এই ব্যস্ত শহরে গাড়ীর বহরে, ট্রাফিক পুলিশের রেড লাইটের আলোই মনে পড়ে যায় পুরনো দিনের সন্ধ্যে। ইচ্ছেগুলো আজ মৃত লাশের কাফনের কাপরের মৃদু চেহারার মত। আর গাওয়া হয়না গানের কলি সুর দেওয়া হয়না ছন্দে দেখা হয়না রাতের জুৎস্নার আলো আমি ক্লান্ত বড্ড ক্লান্ত এই ব্যস্ত নগরীতে। মুচকি হাসির আড়ালে…

    পড়তে থাকুন


  • আয়োন্তিকার শব্দপাত্র

    আয়োন্তিকার মুখের প্রতিটি শব্দ মধুর হয়, প্রেমের গল্পে প্রতিটি স্বপ্ন সুরমই ধরে রাখে। সুরের মাধুর্য পৃথিবীতে ছড়িয়ে রয়েছে, ভালোবাসার কথা সব শব্দের মাঝে লুকিয়ে থাকে। মন ভরা আনন্দে, হাসির বন্ধনে, প্রিয়জনের জানালায় প্রেমের সুর বাজে নিরন্তর। সবুজ বাগানে মাখা প্রণোদনা, ভরে উঠে দুপুরের তাপন, সন্ধ্যায় বাদলে পর্ণ ছড়ায়। প্রতিটি শব্দে সমৃদ্ধ রয়েছে ভালোবাসার কাহিনী, প্রিয়জনের…

    পড়তে থাকুন


  • আমার আয়োন্তিকা

    তোমার চুলের বেণী,আয়োন্তিকা,যেন সোনার সর্পিল ধারা। আলোকিত কেশরাশি,সূর্যাস্তের রঙ মেখে নিবিড় অন্ধকারা। তোমার বেণীর বাঁকগুলি,রূপকথার মায়া গড়া জাল,মিষ্টি ঘ্রাণে ভরিয়ে তোলে চারপাশ,প্রতিটি ক্ষণিক কাল। স্বপ্নের বুননে মোড়া,তোমার চুলের ঐ বেণী,মায়াবী অন্ধকারে লুকানো,যেন রুপকথার গহনী। আলতো বাতাসে খেলে যায়,সিক্ত সেই চুলের ঢেউ,অভিসারে জাগিয়ে তোলে প্রেম,হৃদয়ে স্নিগ্ধ সুরের লয়। তোমার চুলের স্রোতে,হারিয়ে যায় সময়ের সীমানা,স্মৃতির পটে আঁকা,কল্পনার…

    পড়তে থাকুন


গল্প

  • -পৈশাচিক আনন্দ…..

    -পৈশাচিক আনন্দ… তুমি খুব পৈশাচিক আনন্দ পাও তাই না! যখন আমি তোমার তীব্র অপেক্ষার পর, তুচ্ছতার ফাঁস গলায় পেঁচিয়ে অঝরে কাঁদতে থাকি! তোমার – মৃত্যু কামনা, যেনো আমায় রোজ একটু একটু করে শেষ করে ফেলছে । যেখনে সে রাতে ভালোবাসি বলে অচিরেই তুমি বাঁচতে শিখিয়েছিলে কোনো কালে । খুব আনন্দ পাও তাই না!? সত্যি তোমার…

    পড়তে থাকুন


  • -পৈশাচিক প্রেম…..

    -পৈশাচিক প্রেম…. মরে যাবি? যা মর! তুই মরলেও তোর লাশ রেফ্রিজারেটরে প্রিজার্ভ করে আরও কিছু যুগ,আমি আনায়েসে কাটিয়ে দিবো। তোর মুখ কথা না বললেও তোর মৃত্যু চোখ টেনে মেলে অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থেকে চোখের ভাষায় সব বুঝে নিবো। তোর ঠান্ডা শীতল সেই রক্তহীন হাতে লেগে থাকবে আমার হাতের উষ্ণ স্পর্শ,তোর দেহের সেই পৈশাচিক তীব্র মিষ্টি…

    পড়তে থাকুন


  • জ্বর

    গভীর নিঃসঙ্গতায় মানুষ আকাশ দ্যাখে। সুখে বিভোর থাকা মানুষ কখনো এক দৃষ্টিতে আকাশ দেখেনা। আকাশ কেবল মন খারাপের সঙ্গী হয়,ব্যাথায় নিস্তেজ শরীর তারউপর থার্মোমিটারের পারদ এর ওঠানামা তো 103°-104° এর ভিতরে সীমাবদ্ধ , সবমিলিয়ে যাচ্ছে দিন।

    পড়তে থাকুন


  • এ ক্ষতি আপনার নয়!

    লয়াল থাকুন। সৎ থাকুন। নিজের ১০০ শতাংশ দিয়ে থাকুন। তারপরেও বেরিয়ে আসতে হলে, মাথা উঁচু রেখে বেরিয়ে আসুন। চোখে জল আসলে, চোখ মুছুন। আর নিজেকে বোঝান, এ ক্ষতি আপনার নয়। কোনওভাবেই নয়…

    পড়তে থাকুন


  • বৃষ্টি

    এ শহরে যখন বৃষ্টি নেমে আসে আমার উঠোন বন্যায় ভাসে,আমার কান্না গিয়ে মেশে বৃষ্টির কান্নাতে আর আমি ডুবে যাই, ভেসে যাই হাঁটু পানিতে।

    পড়তে থাকুন


  • প্রথম লেখা।

    গির্জার ঘন্টা টা টং টং করে বেজে উঠল। বসন্তের এক সকাল বেলা। খুবই মুগ্ধকর পরিবেশ। যিশুর সামনে প্রার্থনা রত অবস্থায় এক ৬০ উর্ধ বয়সি বৃদ্ধ। মাথা ভর্তি তাহার পাকা চুল মুখ ভর্তি সাদা দাড়ি। তবে মাঝে মাঝে এক দুইটা কালোও রয়েছে৷ চোখে চশমা, যেটা দেখে আন্দাজ করা যায় চোখে খুবই কম দেখেন তিনি। খুবই করুন…

    পড়তে থাকুন


  • সময়

    সময় বদলায় স্মৃতি নাহ

    পড়তে থাকুন


  • মাঝে মাঝে তব দেখা পাই, চিরদিন কেন পাই না? কেন মেঘ আসে হৃদয়-আকাশে, তোমারে দেখিতে দেয় না? —রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

    মাঝে মাঝে তব দেখা পাই, চিরদিন কেন পাই না? কেন মেঘ আসে হৃদয়-আকাশে, তোমারে দেখিতে দেয় না? —রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

    পড়তে থাকুন


  • আব্বা

    মনে হয় বড় হইয়া যেন আব্বার কাছ থেইকা পর হইয়া গেছি। কত আপন ছিলাম আগে… ঈদের দিন সকালে আব্বা হাতে ধইরা পুকুরে নিয়া যাইতো, নিজের হাতে গোসল করাই দিতো, আম্মাই তেল পাউডার দিয়া নতুন জামা পড়াই দিত। আব্বা হাতে নতুন একটা দশ টাকার নোট দিত, আব্বার হাতের আঙ্গুলে ধইরা ঈদে যাইতাম। তখন কতই আপন ছিলাম।…

    পড়তে থাকুন


  • দুনিয়া ছাড়তে আর পারলাম কই।

    একদিন বলেছিলাম, তোমার জন্য এই দুরিয়া ছাড়বো, তবু তোমায় ছাড়তে পারবো না। আমায় মিথ্যাবাদী বানালে। তুমি ঠিক’ই ছেড়ে গেলে, আমি “দুনিয়া ছাড়তে আর পারলাম কই”।

    পড়তে থাকুন


ছন্দ

গান

  • মাকে তুমি শুধু জানো গো মন

    মাকে তুমি শুধু জানো গো মন (শ্যামা) মাকে তুমি শুধু জানো গো মন || মাকে জানলে পরে সব কিছু তো এমনি জানা হয়ে যাবে || মা যে এই আকাশ বাতাস দূরের ওই সূর্য তারা || মা যে অখিল সাগর নদী পাহাড় বন্যা ঝড় মরু নির্ঝর ||

    পড়তে থাকুন


  • একবার দু’হাত তুলে বলো

    (একবার) দু’হাত তুলে বলো শ্যামা শ্যামা শ্যামা || দেখবে কত শান্তি পাবে মনে শ্যামা মা’র নামে মেতে | তাঁর নামে-গানে পাগল হলে ক্ষতি কিছু নেই জানবে || ঐ পাগলী মায়ের সন্তান তো পাগল ছাড়া আর কী হবে | মা আমার রাগী তবু মাকে ভালোবাসি || মাকে রেখেছি আমি বুকের ভিতর সেথায় সে ভালো আছে |…

    পড়তে থাকুন


  • তারা তারা বলো (তারা মায়ের গান )

    তারা তারা বলো তারা তারা বলো || (শুধু) তারা নাম জপ ক’রে যাও সারা দিনে-রাতে মিলে || দেখবে এ নাম জপ ক’রলে মনে আসবে পরম শান্তি || (তুমি) সে শান্তিতে ডুবে থাকো তারা মা’র আশীর্বাদে || এত বড় বিশাল আকাশে তারা মা লুকিয়ে আছেন || (আমরা) দেখতে তাঁকে পাই না তবু তিনি আমাদের দেখেন ||…

    পড়তে থাকুন


  • শ্যামা মা আমার কত বড় (শ্যামা সঙ্গীত )

    শ্যামা মা আমার কত বড় || ঐ আকাশ যত বড় মা আমার তার চেয়েও অনেক বড় | সূর্য তারা সবাই মিলে আছে মায়ের অঙ্গে ছড়িয়ে || মায়ের পায়ের নিচে আছে পড়ে আমাদের এই পৃথিবী | বিষ্ণু বিভু ভোলাবাবা কাজ করে মা’র আদেশে || এই ভবের সংসার মা’র আদেশে কাজ করে খুশি মনে | অর্ঘ্য এসব…

    পড়তে থাকুন


  • মায়ের নাম নিয়ে কৈলাসে যাব ( শ্যামা সঙ্গীত )

    মায়ের নাম নিয়ে কৈলাসে যাব আমি এবার মায়ের নাম নিয়ে কৈলাসে যাব || দেখব সেথায় মা আছে নাকি আছে শুধুই পাহাড়মালা || দেখব সেথায় মা’র চরণচিহ্ন কোথায় কোথায় বাবার ত্রিশূল পোঁতা || দেখব সেথায় কেমন করে থাকে মা বাবার সাথে || আমি সেথায় গিয়ে আসব না আর থেকে যাব তাঁদের কাছে || মাকে আমি রেখেছি…

    পড়তে থাকুন


  • মায়ের নাম নিয়ে কৈলাসে যাব ( শ্যামা সঙ্গীত )

    মায়ের নাম নিয়ে কৈলাসে যাব আমি এবার মায়ের নাম নিয়ে কৈলাসে যাব || দেখব সেথায় মা আছে নাকি আছে শুধুই পাহাড়মালা || দেখব সেথায় মা’র চরণচিহ্ন কোথায় কোথায় বাবার ত্রিশূল পোঁতা || দেখব সেথায় কেমন করে থাকে মা বাবার সাথে || আমি সেথায় গিয়ে আসব না আর থেকে যাব তাঁদের কাছে || মাকে আমি রেখেছি…

    পড়তে থাকুন


  • তারা তারা নামে ডুবে যা না ( তারা মায়ের গান )

    তারা তারা নামে ডুবে যা না || (ও মন) তারা তারা বলে তুই তারা নামে ডুবে যা না || তারা নাম মহানাম তারা নাম শ্রেষ্ঠনাম || (ও মন) তারা তারা বলে তুই দুঃখ-জ্বালা সব মেটা না || মধুমাখা তারা নামে মেতে থাক অনুক্ষণ || (ও মন) যে মেতেছে এ নামেতে সে পেয়েছে তারা মাকে ||…

    পড়তে থাকুন


  • মেয়ে হয়ে মা তুই আয় না কাছে ( শ্যামা সঙ্গীত )

    মেয়ে হয়ে মা তুই আয় না কাছে আমার মেয়ে হয়ে তুই থাক না ঘরে || আমি যা খাব মা গো তুইও তাই খাবি || পারবি না কি স্বর্গ থেকে এই ছোট্ট ঘরে চলে আসতে || স্বর্গের মতো পাবি না হেথায় অমন স্বর্গীয় সুখ || আমার যেমন আছে তাই দিয়ে মা তোকে আমি করব সেবা ||…

    পড়তে থাকুন


  • এবার আমি পাগল হব ( শ্যামা সঙ্গীত )

    এবার আমি পাগল হব মায়ের নামে পাগল হব || পাগল হয়ে আমি তখন মায়ের কাছে চলে যাব || আমি তখন ভবের সংসার থেকে একেবারে মুক্তি পাব || অর্ঘ্য বলে মা’র নামই তো জগতের শ্রেষ্ঠ নাম || যে জন এ নামে ডুবেছে সে জন বড় সুখে আছে || অর্ঘ্য বলে এ নাম নিলে মন প্রাণ হয়…

    পড়তে থাকুন


  • এই সবুজের পাাশে মেঘনার ঢেউ

    এই সবুজের পাাশে মেঘনার ঢেউ তরুলতা ঘাসে থাকা এক ছবি, এ তো ছবি নয় প্রাণের- ভালোবাসা। চোখ হারা নদী পাখিদের ঝাঁকে জেলে নৌকা লয়ে যেই পরে থাকে ঢেউ আর জলে খেলে যায় পাশা। পথ ধরা ক্ষেতে রঙ মাখা মাখি ফসলের রঙে চারদিক আঁকি। আঁকা বাকা পথে পথ টানা মনে চাষাদের চাষে চোখ নামা ক্ষণে। এই…

    পড়তে থাকুন


নাটিকা

  • সিন্দুরের বেসাতি

    ওলো সোনার বরণী, তোমার সিন্দুর নি নিবারে সজনি! রাঙা তোমার ঠোঁটরে কন্যা, রাঙা তোমার গাল, কপালখানি রাঙা নইলে লোকে পাড়বে গালরে; তোমার সিন্দুর নি নিবারে সজনি! সাঁঝের কোলে মেঘরে-তাতে রঙের চূড়া, সেই মেঘে ঘষিয়া সিন্দুর করছি গুঁড়া গুঁড়ারে, তোমরা সিন্দুর নি নিবারে সজনি! এই না সিন্দুর পরিয়া নামে আহাশেতে আড়া, এই সিন্দুরের বেসাতি করতে হইছি…

    পড়তে থাকুন




যে বিনিদ্র সে স্বপ্ন দেখতে পারে না
যে অসুখী সে কবিতা লিখতে পারে না।

আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ